1. jobcircular@aol.com : admin :
চাকরির জন্য সিভি লেখার নিয়ম - Job Circular
মঙ্গলবার, ০৭ জুলাই ২০২০, ০৩:৫৮ অপরাহ্ন

চাকরির জন্য সিভি লেখার নিয়ম

  • প্রকাশিতঃ শুক্রবার, ২৪ এপ্রিল, ২০২০
  • ৩১৩ দেখা হয়েছে

বর্তমানে সরকারী বা বেসরকারী চাকরির জন্য প্রয়োজন ভালো মানের একটি সিভি। একটি সিভির মাধ্যমে প্রকাশ পায় একজন ব্যক্তির শিক্ষাগত যোগ্যতা, অভিজ্ঞতা সহ ব্যক্তিগত তথ্য। তবে চলুন জেনে নেয়া যাক একটি ভালো মানের চাকরির জন্য সিভি লেখার নিয়ম।

ছবি

একটি সিভির উপরের অংশের ডান পাশে পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবি সংযুক্ত করতে হবে। হাস্যউজ্জল চেহারা হতে হবে, কোন মতে ফ্যাকাসে বা মন মরা এবং এলোমেলো চুল/দাড়ি যুক্ত ছবি হবে না।

নাম

সিভির উপরের বাম পাশে নাম, ঠিকানা ও মোবাইল নাম্বার লিখতে হবে। আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা ও ভোটার আইডি বা স্মার্ট আইডি কার্ডে যেমন নাম রয়েছে ঠিক তেমন দিবেন। ঠিকানা টি পুরিপূর্ণ ভাবে দিবেন সাথে পোষ্ট কোন ও নাম থাকবে। শেষে মোবাইল বা ইমেইল আইডি দিতে পারেন।

অভিজ্ঞতা

সিভিতে অবশ্যই আপনার অভিজ্ঞতা লিখতে হবে, যদি অভিজ্ঞতা থাকে। কোন প্রতিষ্ঠানে ছিলেন, কত বছর যাবৎ ছিলেন, কোন পোষ্ট বা দ্বায়িত্বতে ছিলেন এবং প্রতিষ্ঠানের ঠিকানা সহ বিস্তারিত সুন্দর ভাবে প্যারাগ্রাফ আকারে লিখবেন।

পেশাগত লক্ষ্য

আপনার সিভিতে পেশাগত লক্ষ্য অবশ্যই উল্লেখ করুন। বিষয়টি পরিষ্কার ভাবে লিখুন। আপনি কি করতে চান, কেন করতে চান, আপনার দ্বারা কি উপকার হবে এই সব বিষয়বস্তু উল্লেখ করবেন।

শিক্ষাগত যোগ্যতা

তিনটি বা চারটি টেবিল করুন এবং শিক্ষাগত যোগ্যতা উল্লেখ করুন। নিম্নের টেবিল টি লক্ষ্য করুন।

পরীক্ষার নামশিক্ষা প্রতিষ্ঠানবোর্ডপাশের সনরেজাল্টগ্রেড
এসএসসিবিদ্যালয়ের নামঢাকা২০১০৪.৫০
এইচএসসিকলেজের নামঢাকা২০১২৪.৫০

ব্যক্তিগত তথ্য

সিভিতে অবশ্যই ব্যক্তিগত তথ্য প্রদান করতে হয়। যেমন, আপনার পিতার নাম, মায়ের নাম, জন্ম তারিখ, রক্তের গ্রুপ, ঠিকানা, ভোটার বা স্মার্ট আইডি কার্ড নাম্বার, ধর্ম সহ ইত্যাদি প্রদান করবেন।

সেবামূলক কাজ

আপনি স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে যে কাজ বা সংগঠনে যুক্ত তার তথ্য লিখতে হবে। কত দিন ধরে কাজ করছেন, কোন পদে কাজ করছেন তা লিখুন। প্রয়োজন হলে, প্রতিটি কাজের সঙ্গে সংক্ষিপ্ত করে কাজের বর্ণনা দিন।

প্রশিক্ষণ

বিশ্ববিদ্যালয় বা কলেজ জীবনে যেসকল কর্মকান্ডে অংশ নিয়েছেন অথবা প্রশিক্ষণে অংশ নিয়েছেন তার তালিকা যুক্ত করতে হবে। কর্মশালার নাম ও আয়োহন কারীদের তথ্য সংক্ষিপ্ত করে লিখুন। অনলাইনের মাধ্যমে কোনো ডিগ্রি বা প্রশিক্ষণ নিলে সেটাও সিভিতে যুক্ত করুন।

কম্পিউটার পরিচালনা

বর্তমান বিশ্বে কম্পিউটার ছাড়া পরিকল্পনা করা যায় না। তাই যে কোন চাকরির আবেদন করার আগে বেসিক কম্পিউটার প্রশিক্ষণ গ্রহণ করুন। সব পর্যায়ের চাকরির জন্য মাইক্রোসফট ওয়ার্ড, এক্সেল ও পাওয়ারপয়েন্ট জানাকে সাধারণ দক্ষতা হিসেবে ভাবা হয়। মাইক্রোসফট ওয়ার্ড, এক্সেল ও পাওয়ারপয়েন্টের কাজ খুব ভালো জানলে তা অবশ্যই সিভিতে যুক্ত করবেন। এছাড়া হাই লেভেল এর প্রশিক্ষণ থাকলে তা যুক্ত করুন।

ভাষা

আপনার সিভিতে অবশ্যই ভাষা দক্ষতা উল্লেখ করবেন। ইংরেজি ও বাংলা লিখতে, বলতে ও পড়তে কেমন পারেন তা উল্লেখ করুন।

ইচ্ছা বা আগ্রহ

আপনার কি করতে ভালো লাগে এবং আপনার ইচ্ছা শক্তি সংক্ষেপে উল্লেখ করুন।

রেফারেন্স

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকেরাই ভালো রেফারেন্স হিসেবে কাজ করেন। এ ক্ষেত্রে শিক্ষককে জানিয়ে তাঁর নাম ও পদবি ব্যবহার করুন। কখনো কখনো চাকরিদাতা প্রতিষ্ঠান থেকে রেফারেন্সে যাঁর নাম থাকে, তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করে আপনার বিষয়ৈ জানতে চাই। তাই অবশ্যই পরিচিত জনদের তথ্য দিবেন।

অঙ্গীকার

সিভি লেখার শেষে আপনার অঙ্গীকার স্বীকার করতে হবে যে, আপনি যে তথ্য প্রদান করেছেন তা ১০০% সত্য।

যা করবেন না

অনেকেই অন্যের জীবনবৃত্তান্ত প্রায় হুবহু অনুকরণ করে নিজের সিভি তৈরি করেন। এটা একেবারেই ঠিক নয়। চাকরিদাতারা কিন্তু সিভিতে চোখ বুলিয়েই ব্যাপারটা বুঝতে পারেন। সিভিকে আকর্ষণীয় করে তুলতে অনুচ্ছেদ বা প্যারাগ্রাফের বদলে বুলেট পয়েন্ট ব্যবহার করতে পারেন। সিভিতে কোনোভাবেই বানান ভুল করা যাবে না।সিভি যেন কোনোভাবেই দুই পৃষ্ঠার বেশি না হয়। তবে, এক পৃষ্ঠায় শেষ করতে পারলে ভালো।

সোশ্যাল মিডিয়া পোষ্টটি শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরও জব
© All rights reserved, 2020 Job-circular.com